ইতালিতে মৃত্যুর রেকর্ডনিজেকে যুদ্ধকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা ট্রাম্পের


Published: 2020-03-19 21:00:04 BdST, Updated: 2020-03-28 18:32:03 BdST

 

রোম, ১৯ মার্চ, ২০২০ : ইতালিতে বুধবার করোনাভাইরাসে প্রায় ৫শ জন মারা গেছে। এ সংখ্যা অন্য কোনো দেশে একদিনে মারা যাওয়া যে কোন সংখ্যার চেয়ে বেশি।
এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে নতুন কার্যকরি পদক্ষেপের নির্দেশনা দিয়েছেন এবং নিজেকে যুদ্ধকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেছেন।
বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখন দুই লাখ ছাড়িয়ে গেছে। রাষ্ট্রসমূহ নতুন কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহণের ঘোষণা দিয়েছে। মার্কিন কংগ্রেস একশ বিলিয়ন মার্কিন ডলার জরুরি ত্রান প্যাকেজ অনুমোদন দিয়েছে।
ট্রাম্প সামরিক জাহাজে হাসপাতাল চালুর ঘোষণা দিয়েছেন। এদিকে ইউরোপে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাংগেলা মার্কেল নাগরিকদের উদ্দেশ্যে এক আবেগঘন বক্তব্য দিয়েছেন।
টেলিভিশনে তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন,‘দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় থেকে আমাদের দেশ এমন কোনো ঝুঁকির মুখোমুখি হয়নি যা মোকাবিলায় আমাদের সম্মিলিত সংহতির প্রয়োজন ছিল।’
ইতালিতে একদিনে ৪৭৫ জনের মৃত্যু এবং সারাবিশ্বে ৮হাজার ৭০০ মানুষ এ ভাইরাসে প্রান হারিয়েছে। চীনে গত ডিসেম্বরে প্রথম এই ভাইরাসের উৎপত্তি হলেও মৃত্যু সংখ্যায় ইউরোপ এখন এশিয়ার ওপরে অবস্থান করছে।
ইতালি বিশ্বে করোনায় তিন ভাগের এক ভাগ মৃত্যুর রেকর্ড সৃষ্টি করেছে এবং সেখানে সকল প্রকার বাণিজ্য ও গণজমায়েত বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশও এ ধরণের পদক্ষেপ নিয়েছে।
ইতালির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের প্রধান সিলভিও ব্রুসাফেরো সাংবাদিকদের বলেন,‘যেন কেউ মারা না যায় সেটাই এখন মূল লক্ষ্য হওয়া উচিত।’
তিনি বলেন,‘যদি আরো কিছুদিন আগে এ ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হতো ভালো ফল পাওয়া যেতো।’
ইউরোপীয় কেন্দ্রিয় ব্যাংক ভাইরাসের কারণে অর্থনৈতিক ক্ষতিপুরণে ৭৫০ বিলিয়ন বন্ড-ক্রয়ের ঘোষণা দেয়ার পর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমান্যুয়েল ম্যাক্রো টুইটারে ‘অর্থনৈতিক সংহতির’ পুন: আহ্বান জানিয়েছেন।
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সহযোগীদেশগুলোর সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশের স্কুলসমূহ শুক্রবার থেকে বন্ধ ঘোষণা করেছেন।
যুক্তরাজ্যে এখন মৃতের সংখ্যা শতাধিক। আইনপ্রনেতাগণ প্রধানমন্ত্রীকে সাপ্তাহিক প্রশ্নোত্তর পর্বে পার্লামেন্ট এলাকাকে বিশেষভাবে সংক্রমিত এলাকা বলে সতর্ক করেন।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বিশ্বের দীর্ঘতম আন্তর্জাতিক সীমান্তে অত্যাবশ্যকীয় ছাড়া ভ্রমণ ৩০ দিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছেন।
আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা হুঁশিয়ার করেছে, এই মহামারীর কারণে আরো প্রায় আড়াই কোটি লোক কর্মহীন হয়ে পড়বে।
বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়াসাস কোভিড-১৯-কে এক নজিরবিহীন হুমকি হিসেবে বর্ণনা করেন।
এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি প্রতিটি দেশকে একযোগে প্রাণঘাতী অভিন্ন শত্রু এ ভাইরাস মোকাবেলার আহ্বান জানান।
তিনি বিশেষভাবে আফ্রিকাকে হুঁশিয়ার করেন ও অত্যন্ত খারাপ পরিস্থিতি সৃষ্টির সম্ভাবনা সম্পর্কে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।
আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলে প্রথম ভাইরাসে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। বুরকিনা ফ্রাসোর কর্মকর্তারা জানান, এক উচ্চপদস্থ রাজনীতিবিদ রোজ মারি কমপাওরি ৬২ বছর বয়সে মারা গেছেন। তিনি সংসদের প্রথম ভাইস-প্রেসিডেন্ট ছিলেন।
আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলে ৬০০ মানুষ ভাইরাসে আক্রান্ত। সেখানে ভঙ্গুর স্বাস্থ্য সেবা ব্যবস্থা বিদ্যমান থাকায় বিশেষ হুমকির আশংকা দেখা দিয়েছে।
ল্যাটিন আমেরিকায় ১৩০০ জন আক্রান্ত হয়েছে। সবচেয়ে জনবহুল দেশ ব্রাজিল মঙ্গলবার প্রথম এক ব্যক্তির মৃত্যুর ঘোষণা দিয়েছে।
ব্রাজিলে মন্ত্রীপরিষদের দুজন মন্ত্রীর এবং সিনেট প্রধানের ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদিকে মার্কিন কংগ্রেসের দুই সদস্যও এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।
মালয়েশিয়া ইতোমধ্যেই বহিরাগতদের ভ্রমণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। ভিয়েতনাম ইউরোপীয় বেশকটি দেশের অনুপ্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে।
অস্ট্রেলিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়ে গেছে।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের ৩০ দিনের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারির একদিন পর ইইউ কমিশন প্রধান উরসুলা ভন ডার লেয়েন রাজনীতিবিদরা এই ভাইরাসের হুমকীকে প্রাথমিকভাবে খাটো করে দেখেছেন বলে উল্লেখ করেন।
এশিয়ায় করোনায় বিশেষ ক্ষতিগ্রস্থ চীন এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় সাম্প্রতিক দিনগুলোতে নতুন আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা কমে এসেছে।
জানুয়ারি মাসে প্রতিদিনের আক্রান্তের সংখ্যা নির্নয় শুরুর পর থেকে চীনে বৃহস্পতিবার প্রথম নিজ দেশের কোনো নাগরিক আক্রান্ত না হওয়ার খবর দিয়েছে। তবে চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন জানিয়েছে, সেখানে বহিরাগত আরো ৩৪ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে। গত দুই সপ্তাহের মধ্যে এই আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

সম্পাদক: মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান পলাশ

যোগাযোগ: গুলিস্তান শপিং কমপ্লেক্স, রুম নং-১০০, ঢাকা। মোবাইল: ০১৭৪০-৫৯৯৯৮৮. E-mail: odhikarpatra@gmail.com

সম্পাদক: মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান পলাশ

যোগাযোগ: গুলিস্তান শপিং কমপ্লেক্স, রুম নং-১০০, ঢাকা। মোবাইল: ০১৭৪০-৫৯৯৯৮৮. E-mail: odhikarpatra@gmail.com


Developed by: EASTERN IT