odhikarpatra@gmail.com ঢাকা | মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

ফুটবলের আকর্ষনকে বের করে নিয়ে আসা রেফারির মূল লক্ষ্য ইয়ামাশিতা

odhikarpatra | প্রকাশিত: ২৮ জুন ২০২২ ১৯:৩৭

odhikarpatra
প্রকাশিত: ২৮ জুন ২০২২ ১৯:৩৭

‘ফুটবল একটি সুন্দর খেলা’- কিংবদন্ত পেলে বা যারাই প্রথম এমন মন্তব্য করেছেন তাদের সঙ্গে একমত আসন্ন পুরুষ বিশ্বকাপ ফুটবলের ম্যাচ পরিচালনার জন্য নির্বাচিত জাপানি রেফারি ইয়োশিমি ইয়ামাশিতা। আসন্ন কাতার বিশ্বকাপের ম্যাচ পরিচালনার জন্য যে তিনজন নারী রেফারিকে ফিফা তালিকাভুক্ত করেছে তাদের একজন ইয়ামাশিতা। ২১ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া ফুটবলের সর্ববৃহত এই মঞ্চে প্রথমবারের মতো ম্যাচ পরিচালানার দায়িত্ব পালন করতে যাচ্ছে নারী রেফারিরা। নিজের কাজকে তিনি দেখছেন এইভাবে, ‘যেমনটি উচিৎ তেমনভাবেই খেলাটিকে আলোকিত হতে দিন।’ সোমবার টোকিওতে গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ইয়ামাশিতা বলেন,‘একজন রেফারির সবচেয়ে বড় লক্ষ্য হচ্ছে ফুটবলের আকর্ষনকে বের করে নিয়ে আসা। এজন্য আমি নিজের সেরাটা দিয়ে চেস্টা করব। আমি যথাসাধ্য চেস্টা করব এবং শেষ পর্যন্ত লক্ষ্য অর্জনে আমার যা করা উচিৎ আমি তাই করব। আমার যদি খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে হয় তাহলে তাই করব। যদি কার্ড দেখাতে হয় তাহলে দেখাব। ম্যাচ নিয়ন্ত্রনের চেয়ে ফুটবলের আসল সৌন্দর্য্য বের করে আনার বড় লক্ষ্য কিভাবে অর্জন করা যায় সেটি নিয়েই আমি ভাবছি।’ ফিফার তালিকায় স্থান পাওয়া বাকী দুই নারী রেফারি হচ্ছেন ফ্রান্সের স্টেফানি ফ্র্যাপার্ট ও রুয়ান্ডার সালিমা মুকানসাঙ্গা। তালিকায় সর্বমোট ৩৬জন রেফারি স্থান পেয়েছে। এছাড়া বিশ্বকাপের জন্য ৫৯জন সহকারী রেফারির তালিকায়ও তিনজন নারী সহকারীকে অন্তর্ভুক্ত করেছে ফিফা। এরা হলেন ব্রাজিলের নেউজা ব্যাক, মেক্সিকোর কারেন দিয়াজ মেডিনা এবং যুক্তরাস্ট্রের ক্যাথরিন নেসবিট। অবশ্য এদের সবাই যে ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্ব পাবেন তা নয়। সাইডলাইনে বসে চতুর্থ রেফারির ভুমিকাও পালন করতে পারেন তারা।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: