ঢাকা | শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ বিশ্বে রোল মডেল: মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী

আহসানুল ইসলাম আমিন | প্রকাশিত: ১১ জুলাই ২০২৩ ২৩:০৮

আহসানুল ইসলাম আমিন
প্রকাশিত: ১১ জুলাই ২০২৩ ২৩:০৮

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ বিশ্বে রোল মডেল। নারীদের হাতে স্কুটার দেওয়ার মধ্য দিয়ে তাদের ইচ্ছামতো চলাচলের স্বাধীনতা নিশ্চিত হবে। পথ চলতে পদে পদে তাদের যে ভোগান্তি, তা দূর হবে।

আজ মঙ্গলবার (১১ জুলাই) রাজধানীর ধানমন্ডিতে রাপা প্লাজায় জয়িতা নারী উদ্যোক্তাদের স্বল্প সুদের ঋণে স্কুটার ও ঋণের চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, গণপরিবহনে নারীদের চলাচল করতে গিয়ে নানারকম ঝক্কি ঝামেলা মোকাবিলা করতে হয়। যার প্রভাব পড়ে তাদের কাজে। তাই নারীদের নিরাপত্তা রক্ষায় একশ বাসে সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে, যেন কোনো ঘটনা ঘটলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া যায়। 

তিনি বলেন, স্কুটার বিতরণের মধ্য দিয়ে নারীর ক্ষমতায়ন আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হলো। আজকে যারা এ ঋণ পাচ্ছেন, আশা করি তারা ভালোভাবে এ অর্থ ব্যবসায় বিনিয়োগ করবেন। দক্ষতার সঙ্গে নিজেদের ব্যবসা পরিচালনার মাধ্যমে নিজে ও অন্য নারীদের স্বাবলম্বী হওয়ার পথ দেখাবেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাজমা মোবারেক বলেন, নারী উদ্যোক্তাদের অর্থনৈতিক সক্ষমতা বিনির্মাণে বর্তমান সরকার বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। পণ্য উৎপাদন থেকে শুরু করে পণ্য বিক্রির প্রতিটি পর্যায়ে নারী উদ্যোক্তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি জয়িতা ফাউন্ডেশনের ভূমিকার প্রশংসা করেন। 

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার হিসেবে সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসরুর আরেফিন এবং টিভিএস অটো বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জে. একরাম হোসেন উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা নারীর অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে জয়িতা ফাউন্ডেশন গঠনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ ভূমিকার কথা উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা পাঁচ জন নারীর হাতে মোট ৭ লাখ ৪৫ হাজার টাকার ঋণের আওতায় পাঁচটি টিভিএস স্কুটার হস্তান্তর করেন। এছাড়াও তিনি জয়িতা ফাউন্ডেশনের ৭৫ জন নারী উদ্যোক্তাকে মোট ১১ কোটি ৩০ লাখ  ৮০ হাজার টাকার এসএমই ঋণের চেক বিতরণ করেন।

উল্লেখ্য, জয়িতা ফাউন্ডেশনের রিভলভিং ক্যাপিটাল সাপোর্ট ফান্ড থেকে মাত্র ৫ শতাংশ সুদে এ ঋণ দেওয়া হচ্ছে। সিটি ব্যাংক লিমিটেড, এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক ও ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের মাধ্যমে ঋণগুলো বিতরণ করা হচ্ছে। ফান্ডে বর্তমানে বিদ্যমান ৩৭ কোটি টাকার মধ্যে সাড়ে ১১ কোটি টাকা নারী উদ্যোক্তাদের দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও করোনার সময় প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় ৩৮২ জন নারী উদ্যোক্তাকে ৩০ কোটি টাকা ঋণ দেওয়া হয়েছে। 
 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: